Home Blog

বহরমপুর কে.এন. কলেজের পক্ষ থেকে ফায়ার ব্রিগেড আধিকারিকদের সংবর্ধনা জ্ঞাপন

0

নিজস্ব প্রতিনিধি, তৌসিফ ইকবালঃ সারা দেশ কোভিড ১৯ ভাইরাসের আতঙ্কে আতঙ্কিত। আমাদের দেশ ভারতবর্ষে জারি হয়েছে লকডাউন। করনা ভাইরাসের মোকাবিলায় লকডাউন এর মেয়াদ তৃতীয় পর্যায়ে আবার বাড়ানো হয়েছে। সাধারণ মানুষ এখন গৃহবন্দী তখন রাস্তায় পুলিশকর্মী, ডাক্তার, নার্স ফায়ার ব্রিগেড কর্মীরা দিনরাত এক করে পরিশ্রম করছে সাধারণ মানুষ কে কোভিড ১৯ ভাইরাস এর হাত থেকে বাঁচানোর জন্য।

পরিবার-পরিজন ছেড়ে সাধারণ মানুষের রক্ষার্থে নিজেদেরকে সম্পুর্ন নিযুক্ত করেছে এই পেশার মানুষ। এই সময়ই মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুর কৃষ্ণনাথ কলেজের অধ্যক্ষা মাননীয়া সুজাতা বাগচী ব্যানার্জীর তত্ত্বাবধানে বহরমপুর ফায়ার ব্রিগেড কর্মীদের মনোবল বাড়ানোর জন্য সংবর্ধনা জ্ঞাপন করলেন। উদ্যোক্তা সুজাতা বাগচী ব্যানার্জি বলেন ফায়ার ব্রিগেড কর্মীরা যেভাবে নিজের পরিবার-পরিজন ছেড়ে আমাদের কথা ভাবছেন সেটা সত্যিই প্রশংসনীয়।

Covid -19 এর জন্য USHA-এর প্রচেষ্টা

0

বাংলা টাইমলাইন, রাহুল কারারঃ সারাদেশে সংকট-জনক পরিস্থিতি তে কিছু মানুষকে নিজেদের ক্ষমতা মত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলো কাঁচরাপাড়া এর USHA নামক একটি সংস্থা। প্রায় ১০০জন মানুষ কে খাবার এর ব্যবস্থা করে সাহায্য করেছে। আরো কিছু মানুষ কে সাহায্য করার জন্য তারা তৈরি৷ এটিই অবশ্য প্রথম না, এর আগেও বিভিন্ন রকম প্রকারে তারা মানুষের পাশে থেকেছে, কখনো মানুষের মুখে দু মুঠো ভাত তুলে দিয়ে তো কখনো  বস্ত্র দান করে। USHA এর অনবদ্য প্রয়াসকে সকলে কুর্নিশ জানাচ্ছে সকলেই।

বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চের উদ্যোগে আজ ভগবানগোলায় ত্রাণ এবং খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

0

বাংলা টাইমলাইন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দেশজুড়ে চলছে করোনা মহামারীর প্রকোপ, আর অন্যদিকে লকডাউন এর জেরে প্রায় না খেয়ে থাকার মত অবস্থা খেটে খাওয়া মানুষজনের। আর এজন্যই সেই সমস্ত মানুষদের একটু পাশে থাকার জন্য বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চের উদ্যোগে মুর্শিদাবাদ শাখায় বিতরণ করা হলো কিছু ত্রাণ এবং খাদ্য সামগ্রী। উপস্থিত ছিলেন মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলা শাখার সদস্য সারাফ আবেদিন, আসিফ ফারুক, তৌসিফ ইকবাল (মাসুম) সহ অন্যান্য সদস্যরা। এদিন প্রায় ২০০ জন পরিবারের হাতে ত্রাণ সামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

পয়লা বৈশাখে মুক্তি পেতে চলেছে ১৬ জন শিল্পীর নতুন গান

0

বাংলা টাইমলাইন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ আগামী ১৪ই এপ্রিল পয়লা বৈশাখে সারেগামাপা ২০১৮-১৯ এর ১৬ জন মিলে একটা নতুন বাংলা গান নিয়ে আসছে আড্ডাজোন-এর ইউটিউব চ্যানেল থেকে ঠিক সকাল ১০টায়। হোম কোয়ারেন্টাইন-এর সময়ই এই কাজটা করার ভাবনাচিন্তা শুরু হয়, যেমন ভাবনা তেমন কাজ একটা নতুন Whatsapp গ্রুপ তৈরি হয় আর বাড়িতে বসে ১৬জন মিলে কিভাবে গাওয়া হবে সেই আলোচনা শুরু হয় গ্রুপে। এই দলে আছে অঙ্কিতা, স্নিগ্ধজিৎ, গৌরব, রাহুল, অবন্তী, অনন্যা, অভ্রতনু, গুরুজিত, সুমন,স্নেহা, ঋষিতা, লামা, তন্ময়, হৃতি, প্রতিভা এবং প্রীতম। গানের অডিও রেকর্ডিং এবং ভিডিও রেকর্ডিং দুটোই বাড়িতে বসে হয়। সংগীতায়োজনের দায়িত্বে রয়েছে অভ্রতনু এবং ভিডিওটি এডিট করেছে রাহুল। এই গানের রচয়িতা অর্ঘ্য ব্যানার্জী। গানটা নতুন আশার কথা বলেছে, নতুন করে বন্ধুত্বের কথা বলেছে এবং বলেছে ভালোবাসার কথা। সকলের আশীর্বাদ ও শুভকামনা একান্তই কাম্য।

আবারোও এক ভিক্ষুকের পাশে দাড়ালো সাগরদীঘি উইনার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট

0

বাংলা টাইমলাইন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ কয়েকদিন আগে আনন্দবাজার পত্রিকায় খবর আসে সাগরদীঘি এলাকার দুই ভিক্ষুক যাদের নাম গীতারানি ফুলমালি ও পুটিয়া কিস্কু, তাদের  প্রায় সাগরদীঘি রেল স্টেশন সংলগ্ন এলাকায় দেখা যায় উনারা এই দুর্দিনে শুখনো মুড়ি খেয়ে দিন কাটাচ্ছেন।

খবর দেখার পর তড়িঘড়ি নড়েচড়ে বসে উইনার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এবং সেই খবর যে পুরোপুরি সত্য নয় সেটা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দেওয়া হয়, কারণ সাগরদীঘি উইনার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট যে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করে চলেছে গত সাত দিন ধরে তার মধ্যে এই দুজন কেও সাহায্য করা হয়েছিল।

এই ঘটনার পর সাগরদীঘি উইনার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট আবারও আরও এক ধাপ এগিয়ে সাগরদীঘির বি. ডি. ও স্যার শ্রী শুভজিৎ কুন্ডু মহাশয় এর সাথে কথা বলেন এবং স্যার আমাদের নিরাশ না করে বলেছেন যে খাদ্য সামগ্রী যেভাবে দেওয়া হচ্ছে চলুক কিন্তু তাছাড়াও উনি তাদের জন্য প্রতি মাসে যেন বার্ধক্য ভাতা পাই সেই ব্যবস্থা তিনি নিজে করে দেবেন।

সাগরদিঘী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এগিয়ে এলো অসহায় মানুষের পাশে

0

প্রায় সাড়ে চারশো পরিবারের অন্নের ব্যবস্থা করল মালদার যুব সংগঠন ‘স্বপ্নের পথিক’

0

বাংলা টাইমলাইন, মো: গোলামঃ পুরো দেশ যখন করোনা ভাইরাসের ভয়ে ঘরবন্দী, তখনই মালদার যুবকদের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘স্বপ্নের পথিক’ অন্নের ব্যবস্থা করে দিল প্রায় সাড়ে চারশো দিন আনা-দিন খাওয়া পরিবারের। এছাড়াও ভিন রাজ্যের চারটি জায়গায় শ্রমিকদের খাবারের ব্যবস্থা করে দিয়েছে যুবকদের এই সংগঠন। গত শুক্রবার তারা পরিমান মত খাদ্য সামগ্রী গাড়িতে নিয়ে বেরিয়ে পড়ে মালদা জেলার পরানপুর, সুজাপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার গঙ্গারামপুর ও মালদার বিভিন্ন গ্রাম এলাকায়। ইতিমধ্যে তারা প্রায় সাড়ে চারশ পরিবারের অন্নের ব্যবস্থা করেছে এবং এখনোও চলছে। উপস্থিত ছিলেন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্য নওয়াজ শরীফ, এনামুল হক, ইমদাদুল হক, জনি সঙ্গে আরও সদস্যরা।

সংস্থার একজন সদস্য বলেন, আমরা খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে তারপর ওদের মুখে যে হাসিটা দেখতে পাই, সেটা কোটি টাকা দিয়েও কেনা সম্ভব নয়। তাই আমরা যতটা পেরেছি, করার চেষ্টা করেছি। এভাবে যতদিন পারব মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করব।

দেশের ভয়াবহ পরিস্থিতির মাঝে এভাবে কোন সরকারি সাহায্য ছাড়াই, নিজেদের মধ্যে টাকা উঠিয়ে, ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়াই খুশি স্থানীয় বাসিন্দা সহ সকলেই।

লকডাউনের চতুর্থ দিনের কাঁচরাপাড়া

0

বাংলা টাইম লাইন, রাহুল কারারঃ এই স্থান টির লক্ষী সিনেমা অঞ্চল। সাধারণ দিনে এই স্থানে প্রচুর মানুষের ভীড় থাকে, এই স্থানেই রয়েছে বিভিন্ন ব্যাংক ও দোকান, কিন্তু এই প্যান্ডেমিক অবস্থা এ করোনা থেকে রেহাই পেতে মানুষ পালন করছে সরকারি নির্দেশ। প্রায় জনশূন্য কাঁচরাপাড়া চোখে পরার মতো। বীজপুর পুলিসের অসামান্য কর্ম চোখে পরার মতো।

 

মুর্শিদাবাদের অতিথি অধ্যাপক-কে হারানো মানিব্যাগ ফেরত দিলেন অটোচালক

0

বাংলা টাইমলাইন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ অটোচালকদের নিয়ে অনেক অভিযোগ থাকলেও মানবিক অটোচালকের সংখ্যাটাই বেশি। মুর্শিদাবাদের অতিথি অধ্যাপক আব্দুল উকিল বিকাশ ভবন  থেকে অটো করে বিধাননগর ষ্টেশন আসে ট্রেন ধরে বাড়ি ফেরার জন্য। ট্রেনে উঠে দেখে পকেটে  মানিব্যাগ নেই। মানিব্যাগ এর মধ্যে ATM, PAN কার্ড ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ  নথি ছিলো।  হতাশ হয়ে বাড়ী ফেরেন। কয়েকজন বন্ধুর পরামর্শে  তিনি ফেসবুকে একটি পোষ্ট করেন তার হারিয়ে যাওয়ার মানিব্যাগের বিবরণ দিয়ে।

দিনকয়েক পর আব্দুল উকিলের কাছে ফোন আসে বলা হয়, আমি পরিতোষ বিধাননগর ষ্টেশনের অটো ষ্ট্যান্ড থেকে বলছি আমাদের কাছে আপনার মানিব্যাগ আছে নিয়ে যাবেন। গত বুধবার বিধাননগর ষ্টেশন এসে ঐ কলেজ শিক্ষক মানিব্যাগ ফিরে পেয়ে আপ্লূত। পরিতোষ ও মন্টু বাবু কে কৃতজ্ঞতা  জানিয়ে বলেন যে মানবিকতার অনন্য উদাহরণ পরিতোষ ও মন্টু বাবু। এই অটো চালক এই ঘটনাকে সমাজের দায়বদ্ধতা ও সামাজিক কাজ হিসাবেই দেখছেন।

দিল্লিতে কর্মরত মুর্শিদাবাদের শ্রমিকদের সুস্থভাবে বাড়ি ফেরালো বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ

0

বাংলা টাইমলাইন, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ দিল্লিতে কর্মরত মুর্শিদাবাদের শ্রমিকদের সুস্থভাবে বাড়ি ফেরালো বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ। বিগত কিছুদিন ধরেই দিল্লিতে লাগাতার অশান্তি চলছে, আর এই অশান্তির শিকার হচ্ছে বাঙালি শ্রমিকরা। আর এখানেই বাঙালি শ্রমিকদেরকে নিরাপদ ভাবে বাড়ি পৌঁছে দিল বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ নামে একটি সংগঠন। শ্রমিকদের নিরাপদ ভাবে বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার পর তারা মঞ্চের কর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। মঞ্চের কর্তারা বলেন ভবিষ্যতে কোথাও কেউ সমস্যায় পড়লে বা কোনো অশান্তি হলে আমরা এভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেব।

google-site-verification=Hc1LpMguJcfIaW0yCSfJnAwl29sD-2gI2LMBm_rPpXQ